শ্রীপুরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ

প্রকাশিত: ৫:০৩ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০২০ | আপডেট: ৫:০৩:অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১০, ২০২০
শ্রীপুরে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ

এস এম জহিরুল ইসলাম, গাজীপুরঃ গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার টেংরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এস এম ওমর ফারুক এর বিরূদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ উঠেছে।

এ ব্যাপারে উপজেলার টেংরা গ্রামের অলি বক্সের সন্তান মনির হোসেন গাজীপুর-৩ আসনের মাননীয় সংসদ সদস্য মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ এমপি বরাবর লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। পাশাপাশি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সহ বিভিন্ন দপ্তরে অনুলিপি প্রেরণ করেছেন।

 

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, যথারীতি নিয়ম মেনে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বরাবর গত [১০ ডিসেম্বর ২০১৯ ইং] মনির হোসেন তফসিল অনুযায়ী বিদ্যোৎসাহী সদস্যের জন্য আবেদন করেন। তৎকালীন সময় বিদ্যোৎসাহী পদে আফাজ উদ্দিন সহ দুইজন প্রার্থী চূড়ান্তভাবে কাগজপত্রাদি জমা দেন। প্রধান শিক্ষক স্বাক্ষর করে উক্ত কাগজপত্র জমা রাখেন। পরবর্তীতে নিয়ম অনুযায়ী আবেদনকৃত সকল প্রার্থীর নাম স্থানীয় সাংসদ বরাবর প্রধান শিক্ষকের আবেদন করার কথা থাকলেও অজানা কারণে একক ব্যক্তি জাহাঙ্গীর আলম (পুরুষ) ও মার্জিয়া (মহিলা) বিদ্যোৎসাহীর জন্য আবেদন করেন।

মনির হোসেন সাংবাদিকদের জানান, আমি যথারীতি নিয়ম মেনে কাগজপত্রাদি জমা দেই প্রধান শিক্ষক বরাবর। কিন্তু প্রধান শিক্ষক জালিয়াতি করে আমাদের কাগজপত্র এমপি বরাবর জমা না দিয়ে আমার সাথে জালিয়াতি করে অর্থের বিনিময়ে অন্য এক ব্যক্তিকে বিদ্যোৎসাহী সদস্য বানিয়েছেন। প্রধান শিক্ষকের এমন জালিয়াতির বিচারের দাবি জানাচ্ছি সচেতন মহল ও সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে।

এ ব্যাপারে প্রধান শিক্ষক এস এম ওমর ফারুক জানান, আমার বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ সঠিক নয়, শ্রীপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও তেলীহাটি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের সুপারিশে এমপি বিদ্যোৎসাহী সদস্য নির্বাচিত করেছেন। এছাড়া মনির হোসেনের যোগ্যতা না থাকায় তাকে আগেই বাতিল করা হয়েছে। অপরদিকে আফাজ উদ্দিনের নাগরিকত্ব বিদ্যালয়ের এলাকার আশেপাশে না থাকায় তাকেও বাতিল করা হয়েছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ কামরুল হাসান জানান, বিদ্যোৎসাহীর বিষয়টি এমপি ও প্রধান শিক্ষকের সমন্বয়ে হয়। একাধিক প্রার্থী থাকলে একক ব্যক্তির নাম উল্লেখ করে এমপি মহোদয় বরাবর আবেদন করা ঠিক নয়। প্রধান শিক্ষকের জালিয়াতির বিষয়টি তদন্ত করা হবে।

 

এ ব্যাপারে গাজীপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য মুহাম্মদ ইকবাল হোসেন সবুজ এর মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন করার পরেও কথা বলা সম্ভব হয়নি, এজন্য প্রতিবেদনে উনার বক্তব্য দেওয়া সম্ভব হয়নি।


পুরাতন খবর দেখুন..

Mon Tue Wed Thu Fri Sat Sun
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031